খোয়াই মনু-ধলাই ও কুশিয়ারা'র পানি বৃদ্ধিতে বন্যা পরিস্থিতি  – Newsroom bd24.
ঢাকাবুধবার , ১ সেপ্টেম্বর ২০২১

খোয়াই মনু-ধলাই ও কুশিয়ারা’র পানি বৃদ্ধিতে বন্যা পরিস্থিতি 

লিটন পাঠান ( সিলেট প্রতিনিধি )
সেপ্টেম্বর ১, ২০২১ ১:২১ অপরাহ্ণ
Link Copied!

খোয়াই মনু-ধলাই ও কুশিয়ারা’র পানি বৃদ্ধিতে সিলেটে বন্যা পরিস্থিতি 

 

সিলেটে বন্যা পরিস্থিতি স্থিতিশীল রয়েছে তবে এখনো পানিতে নিমজ্জিত রয়েছে ফসলের মাঠ গত ২৪ ঘন্টায় অপরিবর্তিত রয়েছে সিলেটের প্রধান নদনদীগুলোর পানি। সিলেটের গোয়াইনঘাট, কানাইঘাট, জৈন্তাপুর ও সুনামগঞ্জের তাহিরপুরসহ বেশকিছু এলাকা প্লাবিত রয়েছে। কুশিয়ারা-মনু-ধলাই ও খোয়াই’র পানি বৃদ্ধি পেয়েছে রাস্তাঘাট তলিয়ে যাওয়ায় যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন রয়েছে।

 

গোয়াইনঘাট ও সুনামগঞ্জের কিছু এলাকায় পানিতে নিমজ্জিত রয়েছে ফসলিজমি রোপা ও বোনা আউশ আমনের মাঠ বার বার তলিয়ে যাওয়ায় অগ্রহায়নের ফসল নিয়ে শঙ্কায় কৃষকরা। খাদ্য সঙ্কটে গো- মহিষ নিয়ে বিপাকে রয়েছেন মালিকরা শ্রমিক দিনমজুর পরিবারের মানবেতর দিন কাটছে।

 

গত ২৪ ঘন্টায় কুশিয়ারা মনু-ধলাই ও খোয়াই নদীর পানি বেড়েছে তবে এই সময়ে সুরমা ও সারি নদীর পানি কমেছে নদীগুলোর পানি বাড়লেও তা বিপদসীমার নীচ দিয়ে বইছে বলে জানিয়েছে পানি উন্নয়ন বোর্ডের বন্যা পূর্বাভাস ও সতর্কীকরণ কেন্দ্র।

 

বন্যা পূর্বাভাস ও সতর্কীকরণ কেন্দ্র  জানিয়েছে, গত ২৪ ঘণ্টায় সুরমা নদীর পানি কানাইঘাট স্টেশনে ৪ সেন্টিমিটার, সিলেট স্টেশনে পানি ৩ সেন্টিমিটার ও সুনামগঞ্জ স্টেশনে ২ সেন্টিমিটার কমেছে এছাড়া, কুশিয়ারা নদীর পানি শেরপুর স্টেশনে ৫ সেন্টিমিটার বেড়েছে আমলশীদ স্টেশনে ৪ সেন্টিমিটার ও শেওলা স্টেশনে ৪ সেন্টিমিটার ও মারকুলি স্টেশনে ১৫ সেন্টিমিটার পানি কমেছে।

 

গোয়াইনঘাটের সারিগোয়াইন নদীর পানি সারিঘাট স্টেশনে ১১ সেন্টিমিটার কমেছে এদিকে, মৌলভীবাজারের মনু নদীর পানি রেলওয়ে ব্রিজ (আর.বি) স্টেশনে পানি ১০ সেন্টিমিটার বেড়েছে এবং মৌলভীবাজার স্টেশনে ৪১ সেন্টিমিটার কমেছে। ধলাই নদীর পানি কমলগঞ্জ স্টেশনে ১২৬ সেন্টিমিটার বেড়েছে। খোয়াই নদীর পানি বাল্লা স্টেশনে ২০ সেন্টিমিটার বেড়েছে এবং হবিগঞ্জ স্টেশনে অপরিবর্তিত রয়েছে

 

সিলেটের আবহাওয়া অফিসের তথ্য অনুযায়ী- গত রোববার ও সোমবার (সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত) ৩৬ ঘন্টায় সিলেটে বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে ১২ দশমিক ৯ মিলিমিটার।

 

গত ২৪ ঘন্টায় সিলেটের মৌলভীবাজারে সবচেয়ে বেশি বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে। বন্যা পূর্বাভাস ও সতর্কীকরণ কেন্দ্রের তথ্য অনুযায়ী, মৌলভীবাজারে ৯৩ মিলিমিটার, মনু রেল বিজ্র এলাকায় ৬১ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে একই সময়ে ভারতের আইজল স্টেশনে ২৫ মিলিমিটার, দার্জিলিং ২২ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে।

 

বাংলাদেশ ও ভারতের আবহাওয়া অধিদপ্তরের গাণিতিক মডেলের তথ্য অনুযায়ী, আগামী ৪৮ ঘন্টায় দেশের উত্তর-পূর্বাঞ্চলের আপার মেঘনা অববাহিকার প্রধান নদ-নদীসমূহের পানি হ্রাস পাবে।