ঢাকাবুধবার, ১৮ই মে, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, রাত ৮:০৭
আজকের সর্বশেষ সবখবর

বরিশাল বিভাগে করোনা পরিস্থিতির অবনতি।

তাসকিয়া তাবাস্সুম ( ডেস্ক নিউজ)
জুলাই ২৯, ২০২১ ১২:৪৮ অপরাহ্ণ
পঠিত: 150 বার
Link Copied!

 

 

  • বরিশালে করোনা পরিস্থিতির অবনতি

 

সারা দেশ জুড়ে পালিত কঠোর লকডাউন এর আওতায় বরিশালেও চলছে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর তৎপরতা। করোনার সংক্রমণ ঠেকাতে বন্ধ রয়েছে সকল অফিস-আদালত, ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠান এবং বিপনী- বিতান। কঠোর বিধিনিষেধের আওতায় জরুরি সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠানছাড়া বন্ধ রয়েছে সকল গণপরিবহনও।

এর মাঝেও গত কয়দিন যাবত বিভাগজুড়ে করোনার সংক্রমণ ও মৃত্যুর হার বেড়েই চলেছে।

গত ২৪ ঘন্টায় বিভাগে নতুন করে ৬৫৬ জন করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছে। মোট আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ৩২ হাজার ছাড়ালো।

একদিনে বরিশাল শেরেবাংলা মেডিকেল কলেজে
করোনার উপসর্গ নিয়ে আইসোলেশন ওয়ার্ডে ৯ জন এবং করোনা ইউনিটে ভর্তি ৩ জন মারা যান।

করোনায় মৃতদের মধ্যে বরিশালের ২ জন, পটুয়াখালীর ২ জন, ভোলার ১ জন, পিরোজপুরের ১ জন,বরগুনার ২ জন এবং ঝালকাঠির ৩ জন রয়েছেন।

বরিশাল বিভাগে করোনায় মোট মৃত্যুর সংখ্যা ৪৫৩ জনে দাঁড়ালো।

করোনায় আক্রান্ত ৩২ হাজার ৮৪ জন রোগীর মধ্যে এখন পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ১৮ হাজার ৬৩৮ জন।
আক্রান্ত ৩২ হাজার ৮৪ জনের মধ্যে এখন পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ১৮ হাজার ৬৩৮ জন।

বরিশাল জেলায় নতুন মোট আক্রান্ত ১৩ হাজার ৫৩০ জন, পটুয়াখালী জেলায় নতুন ১৭৮ জন নিয়ে মোট ৪ হাজার ১২৯ জন, ভোলা জেলায় নতুন ১১৩ জনসহ মোট ৩ হাজার ৫১৫ জন, পিরোজপুর জেলায় নতুন ২৪ জনসহ মোট ৪ হাজার ২৩৪ জন, বরগুনা জেলায় নতুন ২৮ জন নিয়ে মোট আক্রান্ত ২ হাজার ৭৭৪জন এবং ঝালকাঠি জেলায় নতুন ৪৮ জন নিয়ে মোট আক্রান্ত সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৩ হাজার ৯০২ জন।

বরিশাল শেরেবাংলা মেডিকেল কলেজে গত ২৪ ঘণ্টায় (বৃহস্পতিবার) সকাল পর্যন্ত আইসোলেশন ওয়ার্ডে ২৭ জন ও করোনা ওয়ার্ডে ২৭ জন ভর্তি হয়েছেন।

করোনা ও আইসোলেশন ওয়ার্ডে এখন ৩০১ জন চিকিৎসাধীন।

এদের মধ্যে ১৬৭ জন করোনা ওয়ার্ডে এবং ১৩৪ জন আইসোলেশন ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

বিভাগে করোনা আক্রান্ত রোগী শনাক্তের হার ৫২.৬৫ শতাংশ।

করোনা আক্রান্ত বেশিরভাগ রোগী হাসপাতালে আনার পর সংকটাপন্ন অবস্থায় দেখা যাচ্ছে। কর্তব্যরত চিকিৎসকরা বলছেন রোগীরা উপসর্গ দেখা দেওয়ার সাথে সাথে চিকিৎসকের শরণাপন্ন হচ্ছেন না। যার ফলে হাসপাতালে ভর্তি বেশিরভাগ রোগীর অবস্থা এই আশঙ্কাজনক।

এভাবে রোগীর সংখ্যা বাড়তে থাকলে হাসপাতালগুলোতে আসনসংখ্যা নিয়েও শংকট শুরু হবে। ইতিমধ্যেই অক্সিজেন ও জরুরি চিকিৎসা সামগ্রী সংকট দেখা দিয়েছে।বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালক ডা. বাসুদেব কুমার দাস এ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের সকলকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার আহ্বান জানান।

 

  • নিউজরুম বিডি২৪।